মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর সাথে সিনে আড্ডা! – শফিক হীরা

মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর সাথে সিনে আড্ডা!
– শফিক হীরা

🌱

কেমন আছেন, বস?
– আছি ভালোই। এই সময়ে যতটুক ভাল থাকা যায় আর কী! তোমার কী খবর?
– ভালো, বস! একটা ইন্টারভিউ লাগবে আপনার বস। অনুধ্যান নামে একটা ওয়েব পোর্টালের জন্য। আমার সবচেয়ে প্রিয় শিক্ষকের ইচ্ছা!
– হা হা হা…. ঠিক আছে। চলো শুরু করা যাক!
– প্রথম প্রশ্ন, এই লকডাউনের সময় কীভাবে কাটছে?
– ভালো প্রশ্ন। প্রচুর বই পড়ছি। সিনেমা দেখছি। আর ভাবছি। সামগ্রিক সবকিছু নিয়াই। এর
মধ্যেই একটা কাজও করা হয়েছে ইউনিসেফ এর জন্য। বাসায় বসে নিভৃতে শুটিং করেছি। দারুণ অভিজ্ঞতা ছিল।
– বোর লাগেনি?
– লেগেছে কখনো কখনো। তবে বেশী লাগেনি। কারন বন্ধুদের সাথে ভার্চুয়ালি কার্ড খেলেছি। এভাবেই কেটে গেছে সময়।

এই মুহূর্তের ব্যাস্ততা নিয়ে কিছু বলুন?
– এই মুহূর্তে আমি আমার প্রথম ইংরেজি ভাষায় নির্মিত ছবি ‘নো ল্যান্ডস ম্যান’-এর সম্পাদনা নিয়ে ব্যস্ত। ছবিটার বেশির ভাগই নিউইয়র্কে শুট করা হয়েছে। নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকি, তাহসান খান, মেগান মিশেলসহ আরও অনেকেই অভিনয় করেছেন এখানে। সম্পাদনার কাজ পুরোপুরি শেষ হলে এ আর রহমান মিউজিকের কাজ শুরু করবেন। আশা করছি এ বছরের শেষ নাগাদ ছবিটা রেডি করে দর্শকের সামনে নিয়ে আসতে পারবো।

অনলাইনের এই যুগে সমালোচনা খুবই সহজলভ্য। যেকেউ চাইলেই যে কারোর সমালোচনা করে ফেলছেন। এটাকে কিভাবে দেখেন?

-অনলাইনে বিভিন্ন পোস্টের নীচে যেসব কমেন্ট থাকে তার মধ্যে একটা বড় অংশই বলার অযোগ্য! গালি-গালাজ, মিসোজিনি, আর ঘৃণার মচ্ছব বসে সেখানে! এটা নিয়ে ইদানীং বেশ কিছু প্রিয় মানুষের লেখালেখি দেখতে পাচ্ছি! সংগত কারণেই উনারা উৎকন্ঠা প্রকাশ করছেন!

যেহেতু ঘটনা চক্রে আমাদের কাজ জনতার সাথে, সেহেতু এই ধরনের মন্তব্যের সাথে আমাদেরও সংসার করতে হচ্ছে ! আমার ক্ষেত্রে শুধু এক দল না! পরস্পর বিরোধী দলের কাছে গালি, অশ্লীল ব্যাক্তি আক্রমণ, হত্যার হুমকি শুনে আসছি! এমনও হয়েছে একই লেখার জন্য একদল বলেছে নাস্তিক, আরেকদল জামাতি, আরেকদল পশ্চিমা সংস্কৃতির দালাল, আরেকদল বলেছে ভারতের দালাল! একই লেখার জন্য! এগুলা কি ভালো লাগে? কার ভালো লাগে এই দুনিয়াতে অহেতু গালাগাল আর অশালীন কথা শুনতে? এক সময় মাথায় রক্ত উঠে যেতো!

এখন কথা হলো এই গালাগাল প্রক্রিয়া কি শুধু বাংলাদেশেরই ইউনিক ব্যাপার? তা কিন্তু না! এটা দেশ-সংস্কৃতি ভেদে কম বেশ হলেও দুনিয়া জোড়া আছে! সব সময়ই ছিলো! আগে ফেসবুক ছিলো না বলে আমরা গালাগালগুলা শুনতে পেতাম না আর কি!

এখন ফেসবুক সবাইকে এক কাতারে দাঁড় করিয়ে দিয়েছে! সবাই এখন সবার ড্রইংরুমে বর্জ্যত্যাগ করার অধিকার রাখে! আগে সমাজে একটা কম্পার্টমেন্টালাইজেশন ছিলো! ফলে আমাদের কোরামের বাইরের মানুষের সাথে সৌজন্য সাক্ষাত ছাড়া কোনো ইন্টারেকশনের সুযোগ ছিলো না! এর ভালো-খারাপ দুই দিকই ছিলো! কিন্তু এখন যেটা হইছে, সেটা হলো যে কেউ যে কোনো বিষয়ে মন্তব্য বা গালি দিতে পারে! যে লোকের হয়তো দুইজনম কেটে যাইতো ঐ সেলেব্রেটির বিশ ফুটের মধ্যে যাইতে, এখন সে অবলীলায় তার অন্দরমহলে ঢুকে কমেন্ট করে আসতে পারে “তুদের মত নাইকাদের জন্য গজব দিছে! মাতায় কাপড় দে, ******”! (শেষের চিহ্নগুলা গালির পরিবর্তে ব্যবহৃত)
যে লোক সারাজীবনে চৌকিদারপাড়া বাজারের বাইরে পা ফেলে নাই, দৈনিক পত্রিকার পাতা উল্টাইয়াও দেখে নাই অন্য পড়াশোনাতো দুরস্ত, সেও দিব্যি জিজেকের লেখার নীচে লিখে দিয়ে আসতে পারে “ ঐ শালা বা* লিখছো”! যার সারাজীবন কাটছে ডিপজলের ছবি (ভালো-খারাপ বলছিনা) দেখে, সেও তারকোভস্কির ছবির ক্লিপিংসের নীচে লিখে আসতে পারে “বা* বানায়”! আগে হইলে হয়তো ডিপজল এবং তারকোভস্কির কখনো সাক্ষাতই হইতো না! এখন ফেসবুক এদের মিলন ঘটাইয়া দিছে এবং এক ধরনের ইন্টারেকশানও শুরু হইছে!

তো কথা হলো, এই মানুষেরা সকল দলের মধ্যেই ছড়ায়ে আছে! এদের সংখ্যা হাজারে হাজার, কাতারে কাতার !

তাহলে করণীয় কী?
-স্রেফ ইগনোর! কমেন্ট সেকশনটাকে জাস্ট ইগনোর করে যাও! প্রতিবাদ করতে গিয়ে স্ক্রিনশট নিয়ে ওগুলা শেয়ার করার মাধ্যমে ওরা যা চায় আমরাই তা করে দিচ্ছি! ওরা চায় এই গালি বা দুর্গন্ধটা ছড়ায়ে যাক চারিদিকে! তুমি বিনাপয়সায় তাদের হয়ে এই কাজটা কেনো করবে?

এই করোনা পরিস্থিতিতে আপনার মুখে আশাবাদের গান শোনা যায়…

হা হা হা ! এই ব্যাপারে একটা কথাই বলি বারবার। এইবার যদি বেঁচেও যাও মানুষ
ও মানুষ
তুমি সিরিয়াসলি পরিবেশের ভারসাম্য নিয়া ভাইবো
স্বাস্থ্য নিয়া ভাইবো, স্বাস্থ্য ব্যবস্থা নিয়া ভাইবো
নাইলে বেশি দিন সাসটেইন করবার আশা নাই।

কোনো উন্নয়ন, অ্যাটম বোম, হাইরাইজ কিছুই তোমারে বাঁচাইতে পারবে না।

অনেক ধন্যবাদ, বস! আসলে অনেকগুলো অজানা জিনিস জানা হয়ে গেলো। শিখতেও পারলাম অনেক কিছু। আজকের মতো আসি বস!
– তোমাকেও ধন্যবাদ। এসো।

অনুধ্যান

Leave a Reply

Next Post

বিদেশি সাহিত্য বনাম বাংলা সাহিত্য | মুম রহমান

Wed Aug 26 , 2020
বিদেশি সাহিত্য বনাম বাংলা সাহিত্য | মুম রহমান 🌱 বিদেশি সাহিত্য নিয়ে আমার আগ্রহ ও কৌতুহল বরাবরই ছিলো, আছে, থাকবে। শুধু নিজের দেশ নিয়ে পড়ে থাকলে কোন কিছুই ঠিকঠাক হবে না। বিশ্বব্যাপী কি হচ্ছে, হয়েছে তার খোঁজ খবর রাখাটা জরুরি। আপনি ফুটবল খেললেও নানা দেশের ফুটবল সম্পর্কে ধারনা রাখা জরুরি। […]
Shares