এডগার এলান পো | মুম রহমান

এডগার এলান পো | মুম রহমান

🌱

বিশ্বসাহিত্যে ছোটগল্পের রাজা বলা হয় এডগার এলান পো (১৮০৯-১৮৪৯) কে। আধুনিক ছোটগল্পের জনকও বলেন কেউ কেউ। ছোটগল্পের এই কারিগর নাজিল করেছেন অসাধারণ কিছু কবিতাও। অনেক সমালোচকদের মতেই, এনাবেল লি, তাঁর সেরা একটি কবিতা। কারো কারো মতে, জীবনানন্দ দাশ বনলতা সেন লিখতে গিয়ে এ কবিতা দ্বারা প্রভাবিত হয়েছিলেন। রহস্য, রোমা , গোয়েন্দা, ভৌতিক, সায়েন্সফিকশন কত কীই না লিখেছেন তিনি। তিনিই প্রথম আমেরিকান লেখক যিনি লেখাকে পেশা হিসাবে নিতে চেয়েছিলেন। বলাবাহুল্য, তার জন্যে ভোগান্তি কম পোহাতে হয়নি। কবিতাপ্রেমী এলান পো মূলত টাকার জন্যেই গল্প আর সমালোচনা লেখা শুরু করেন। তার আরেকটি বিশ্বখ্যাত আলোচিত কবিতা ‘দ্য র‌্যাভেন’।

 

আমার মায়ের প্রতি

 

কারণ আমি তা অনুভব করি, উর্দ্ধাকাশে,

দেবদূতেরা, একজন আরেকজনের কানে কানে বলে,

খুঁজে পায়, তাদের উজ্জল ভালোবাসার পরিভাষা,

আর কিছুই এতো নিবেদিত নয় ‘মা’-এর মতো,

তাই তো সেই প্রিয়তম নামে আমি দীর্ঘ ডেকেছি আপনাকে

আমি যে আমার কাছে মায়ের চেয়েও বেশি,

আর পূর্ণ করেছেন আমার হৃদয়ের হৃদয়, যে মৃত্যু প্রোথিক করেছে আপনাকে,

আমার ভার্জিনিয়ার আত্মাকে মুক্ত করতে।

আমার মা আমার নিজের মা, যে মারা গেছে আগেই,

সে ছিলো কেবল আমার নিজের মা, কিন্তু আপনি

হলেন তার মা যাকে আমি সবচেয়ে মধুর করে ভালোবাসি ,

আর এইভাবেই আমার চেনা মায়ের চেয়ে আপনি মধুরতম

সেই অসীমতার মতো যা দিয়ে আমি আমার স্ত্রীকে

করেছিলাম আমার আত্মার প্রিয়তম আমার জীবাত্মার চেয়েও।  

 

দ্রষ্টব্য : কবিতাটি এলান পো তাঁর শ্বাশুড়ি মিসেস ক্লেমেনের উদ্দেশ্যে লিখেছিলেন।

 

স্বপ্নের ভেতরে একটি স্বপ্ন

 

কপালে এই চুম্বনখানি নাও!

আর এখন আমার কাছ থেকে বিদায় জানাও,

আর এইটুকু আমাকে স্বিকার করতে দাও,

তুমি ভুল নও, যদি ভেবে থাকো পাছে

আমার এই দিনগুলো স্বপ্ন হয়েই আছে;

তবুও যদি আশা দূরে উড়ে যায়

দিবসে কিংবা রাত্রিরে হায়,

একটা ভাবনায় কিংবা কোন কিছুতেই নয়

তবে কি সকল হয় বিলয়?

যা কিছু আমরা দেখি কিংবা দেখছি মনে হয়

সকলই একটা স্বপ্নের ভেতরে স্বপ্ন মনে হয়।

 

আমি দাঁড়িয়ে আছি একটা গর্জনের মধ্যে

ঢেউয়ে বিধস্ত এক সমুদ্র সৈকতে, 

আর আমি ধরে আছি হাতের মুঠোয়

সোনালী বালুর দানার স য়

কতো অল্প! তবুও তারা  লতিয়ে ওঠে কেমনে

আমার আঙুল বেয়ে আরো গভীরে,

যখন আমি কাঁদি, যখন আমি ব্যস্ত কাঁদতে!

ও ঈশ্বর! আমি কি পারি না মুঠোতে দৃঢ় করতে

তাদেরকে আরো শক্ত করে ধরতে?

ও ঈশ্বর! আমি কি রক্ষা করতে পারি না

নির্দয় ঢেউ থেকে একটি দানা?

যা কিছু আমরা দেখি কিংবা দেখছি মনে হয়

কেবলইএকটা স্বপ্নের ভেতরে স্বপ্ন মনে হয়?

একা

 

সেই শৈশবকাল থেকে আমি দেখিনি

অন্যেদের মতো করে; আমি দেখিনি

অন্যের দৃষ্টিতে; আমি পারিনি জাগাতে

আসক্তি প্রচলিত বসন্তের প্রান্তে ।

সেই একই উৎস থেকে আমি গ্রহণ করিনি

আমার বেদনাকে; আমি জাগাতে পারিনি

আমার হৃদয় একই আনন্দের টানে;

আর যা কিছু আমি ভালোবেসেছি, ভালোবেসেছি একাকী জ্ঞানে। 

 

অতঃপর আমার শৈশবে, যখন প্রত্যুষ ছিলো

সবচেয়ে ঝড়ো জীবনের  আঁকা হয়েছিলো

ভালো আর মন্দ তাদের সকল গভীরতায়

রহস্যই আমাকে বেঁধে রাখে স্থির প্রজ্ঞায়:

প্রবল জলস্ত্রোতে কিংবা ঝর্ণার ভাঁজে,

পাহাড়ের রক্তিম খাঁজে,

সেই সূর্য প্রভা যা আমাকে চক্রাকারে ঘুরেছে

তার শরতের সোনালী আভায় মুগ্ধ করেছে,

আকাশে বজ্রপাত হয় 

সে আমাকে পেরিয়ে যায়,

বিদ্যুৎচমক আর ঝড় হয়

আর সেই মেঘ যা গঠিত হয়

(যখন বাকী আকাশ ছিলো নীল)

আমার দৃষ্টিতে একটা শয়তান সামিল। 

🔅🔅🔅🔅🔅🔅🔅

অনুধ্যান

Leave a Reply

Next Post

বই পড়া-প্রেমে পড়া | জাহিদুর রহিম | মূলঃ রোজমেরী আর্কুয়িকো

Fri Aug 28 , 2020
বই পড়া-প্রেমে পড়া | জাহিদুর রহিম  মূলঃ রোজমেরী আর্কুয়িকো 🌿 রোজমেরী আর্কুয়িকো (Rosemarie Urquico) ফিলিপাইনের তরুণ লেখিকা। বর্তমানে থাকেন বগ্যুইন শহরে থাকেন।  পেশাগত জীবনে জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ হিসেবে-  World Health Organization Western Pacific কাজ করেন। ২০১৪ সালে তাঁর ব্যক্তিগত ব্লগে – You should date a girl who reads- নামের লেখাটি প্রকাশিত […]
Shares